ভিসা নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক করুন

আপনি যদি কোন দেশে যাওয়ার জন্য ভিসার এপ্লাই করে থাকেন এবং অলরেডি ভিসার কাগজ পেয়ে থাকেন তাহলে উক্ত ভিসার কাগজে থাকা ভিসা নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক করতে পারবেন, এবং জানতে পারবেন ভিসার সঠিক তথ্য, বৈধতা, ভিসার মেয়াদ, এবং কি ধরনের ভিসা ইত্যাদি। তো চলুন জেনে নেই ভিসা চেক করার নিয়ম সম্পর্কে।

ভিসা হল একটি অনুমতি পত্র যা একটি দেশ কোন বিদেশী নাগরিককে ঐ দেশে প্রবেশ ও অবস্থানের জন্য দিয়ে থাকে। ভিসা ছাড়া ভিন দেশে প্রবেশ ও অবস্থান অবৈধ অভিবাসন হিসাবে পরিগণিত। সাধারণত পাসপোট বা ট্রাভেল পারমিটের কোন একটি পাতায় লিখিত/ সীল দিয়ে বা স্টিকার লাগিয়ে ভিসা প্রদান করা হয়। দেশের বিদেশস্থ দূতাবাসগুলি ভিসা দিয়ে থাকে।

ভিসা চেক করার নিয়ম

আপনি যদি ভিসার কাগজ পেয়ে থাকেন তাহলে যে দেশের ভিসা করেছেন উক্ত দেশের দূতাবাস বা কনস্যুলেট অথবা ইমিগ্রেশন ওয়েবসাইট বা ট্রাভেল এজেন্সি থেকে ভিসা চেক করে নিতে পারবেন, এবং জানতে পারবেন ভিসা সঠিক নাকি ডুপ্লিকেট বা জাল। তবে আপনি ঘরে বসেই ইমিগ্রেশন ওয়েবসাইট থেকে পাসপোর্ট অথবা ভিসা এপ্লিকেশন নাম্বার দিয়েই ভিসা চেক করতে পারবেন।

ভিসা নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক করার নিয়ম

এটি করতে আপনাকে আগে ভিজিট করতে হবে আপনার কাঙ্খিত দেশের ইমিগ্রেশন ওয়েবসাইটে, এরপর আপনাকে খুঁজতে হবে ভিসা চেক করার লিংক। এটা পেয়ে গেলে আপনি সেখানে দেশ এবং ভিসার ধরন ও ভিসা নম্বর বা ভিসা অ্যাপ্লিকেশন আইডি দিয়ে সার্চ দিলে ভিসা তথ্য দেখতে পাবেন। আপনি যেই দেশের ভিসা চেক করতে চান সেই দেশের নাম লিখে গুগলে সার্চ করতে হবে যেমনঃ Saudi Visa Check।

একই পদ্ধতি আপনারা পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে চেক করতে পারবেন, আপনার কাছে যদি ভিসা নাম্বার না থাকে তাহলে পাসপোর্ট দিয়ে চেষ্টা করে দেখতে পারেন।

ভিসা চেক করার প্রয়োজনীয়তা

অনেক অসাধু বা দালাল রয়েছে যারা ভূয়া ভিসা দিয়ে টাকা হাতিয়ে নেয়। ভিসা চেক করলে ভূয়া ভিসা সহজেই চিহ্নিত করা যায়। এছাড়াও, ভিসা চেক করলে ভিসার সাথে সংযুক্ত তথ্য, যেমন কোম্পানি নাম। ভিসা মেয়াদ , ভিসা এক্টিভ নাকি বন্ধ ইত্যাদি তথ্য জানতে পারবেন।

Similar Posts

5 Comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।